বিটকয়েন কি ২০১৭ এর সর্বোচ্চ দামের রেকর্ড অতিক্রম করবে?

প্রায় দুই বছরের জন্য বিটকয়েন এর দাম বাড়ছে না। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে যে বিটকয়েন ২০০০০ ডলার ছুয়েছিল তা এখন ৯০০০ ডলারে লেনদেন হচ্ছে। যদিও ২০১৯ সালের জুন মাসে তা ১৩০০০ ডলার পর্যন্ত গিয়েছিল।

গতকাল বিটকয়েন এর দাম কিছুটা কমে ৮৩০০ ডলারে গেলেও তা আজকে আবার খুব দ্রুত ৯০০০ ডলার অতিক্রম করল। অনেক ট্রেডার এবং বিশেষজ্ঞরা মনে করতেছেন বিটকয়েন অফিসিয়ালি বুল রানের জন্য প্রস্তুত। অর্থাত আমরা বিটকয়েনের নতুন সর্বোচ্চ দাম দেখতে যাচ্ছি।

সতর্কীকরণঃ এইটা কোন ফিন্যান্সিয়াল উপদেশ নয়। বিভিন্ন বিশেষজ্ঞরা কি ভাবছেন তার কিছুটা তুলে ধরার প্রয়াস মাত্র। বিনিয়োগ করতে হলে ততটুকুই বিনিয়োগ করেন যা লস হলেও আপনার কোন সমস্যা হবে না।

বিটকয়েন এর লং টার্ম ট্রেন্ড এবং মোমেন্টাম সিগ্ন্যাল ইন্ডিকেটর থেকে ধারনা করা হচ্ছে বিটকয়েন বুল রানের দিকে যাচ্ছে, মানে আমরা অতি শীঘ্রই নতুন সর্বোচ্চ দাম পেতে পারি। ২০১৭ সালে একই ঘটনার প্রেক্ষিতে মানুষ বিটকয়েনের প্রতি এত ঝুকেছিল যে একটা সাময়িক ফোমো (FOMO- Fear of Misiing Out) তৈরী হয়েছিল যা বিটকয়েনের দাম ২০০০০ ডলার পর্যন্ত নিয়ে যায়। কিন্তু তারপর থেকেই প্রায় ২ বছর বিটকয়েন বিয়ারিশ সিজনে রয়েছে, মানে দামে নিন্মগতি কিংবা কিছুটা দাম বাড়ার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকা। এরই মধ্যে বিটকয়েন এর দাম ৩২০০ ডলার পর্যন্ত নেমেছিল যা পরবর্তীতে ১৩০০০ ডলার পর্যন্ত রিকভার করে আবার কিছুটা কারেকশন এ আসে। ২০১৭ সালের পর বিটকয়েন প্রায় ৮০% দাম কমেছে এবং অন্যান্য কয়েন ৯০% পর্যন্ত দাম হারিয়েছে।

কিন্তু এই বছরের শুরুতেই বিটকয়েনের বিয়ারিশ অবস্থা পরিবর্তন হয়েছে, একই ভাবে অন্যান্য কয়েনের দাম ও বেড়েছে কিছুটা। বেশিরভাগ কয়েনেরই নিন্মমুখী গতি কাটিয়ে প্রায় ৪০% পর্যন্ত দাম বেড়েছে।

উপরের উক্ত টেকনিক্যাল এনালাইসিস থেকে দেখা যায় বিটকয়েনের উর্ধ্বগতি রয়েছে যা পরবর্তীতে বিটকয়েনের দাম নতুন মাত্রায় নিয়ে যেতে পারে।

আমার মতামত

এই বছরের মে মাসে আমরা বিটকয়েনের রিওয়ার্ড মডেলে ব্যাপক পরিবর্তন দেখতে পাবো। মাইনিং রিওয়ার্ড এখন ১২.৫ বিটকয়েন যা মে মাসে ৬.২৫ বিটকয়েন হয়ে যাবে। বিটকয়েনের দাম যদি না বাড়ে তাহলে বিটকয়েন মাইনাররা লসে পরবে। পাশাপাশি, বিটকয়েন পাওয়াটা অনেক কষ্টসাধ্য হবে। উপরের টেকনিক্যাল এনালাইসিস এবং মাইনিং রিওয়ার্ড এফেক্ট, দুই মিলে আমার ধারনা এপ্রিল-মে মাসে আমরা খুব ভালো দাম আশা করতে পারি। পুনরায় বলছি, এইটা কোন ফিন্যান্সিয়াল উপদেশ নয়।

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *